Categories

ওয়েব ডিজাইন কি? ওয়েব ডিজাইন কিভাবে করতে হয়?

ওয়েব ডিজাইন কি? ওয়েব ডিজাইন কিভাবে করতে হয়?

ওয়েব ডিজাইন কি? এবং ওয়েব ডিজাইন কিভাবে করতে হয়? সেই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে আজকের আর্টিকেলে।

এই আর্টিকেলে কি কি থাকছে?  

ওয়েব ডিজাইন কি?

ওয়েব ডিজাইন শিখতে কি কি লাগে?

ওয়েব ডিজাইনের জন্য কম্পিউটার (পিসি)

ওয়েব ডিজাইনের ভবিষ্যৎ কি?

ওয়েব ডিজাইন কিভাবে করতে হয়?

বাংলায় ওয়েব ডিজাইন কিভাবে শিখব?

বাংলা ওয়েব ডিজাইন কোর্স ফ্রি!

শেষকথাঃ

ওয়েব ডিজাইন কি?

বর্তমানের পৃথিবী হলো ইন্টারনেট নির্ভর পৃথিবী। আমাদের জীবনের প্রায় সব কিছুই এখন কোন না কোন ভাবে ইন্টারনেটের সাথে সম্পৃক্ত। আর এজন্যই এখান প্রতিটি প্রতিষ্ঠান মালিক বা ব্যবসায়ীরা চাচ্ছেন যে তাদের ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের নামে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে। যাতে করে তাদের ব্যবসা বৃদ্ধি পায়, মানুষ সহজেই তাদের সম্পর্কে ইন্টারনেটের মাধ্যমে জানতে পায় এবং তাদের প্রতি ক্রেতাদের বিশ্বস্ততা বৃদ্ধি পায়।

তো এইযে ওয়েবসাইট তৈরির এতো এতো চাহিদা, তাহলে এই ওয়েবসাইট গুলো কে তৈরি করবে? তো এই ওয়েবসাইট গুলো যে বা যারা তৈরি করে তাদের বলা হয় ওয়েব ডিজাইনার বা ওয়েব ডেভেলপার আর যে প্রক্রিয়ায় HTML & CSS এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট টি তৈরি হয় তাই হলো ওয়েব ডিজাইন।

তাই বলা যায় ওয়েব ডিজাইন হলো HTML এবং CSS এর মাধ্যমে একটি সম্পুর্ন ওয়েবসাইট তৈরির প্রক্রিয়া। কিন্তু একদম শুন্য থেকে একটা ওয়েবসাইট বানানো হলে সেই প্রক্রিয়াকে বলা হয়ে থাকে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট আর কোন বানানো ওয়েবসাইট বা থিম নিজের মতো করে সাজিয়ে নেয়াকে বলা হয় ওয়েব ডিজাইন। বর্তমান সময়ে ওয়েব ডিজাইন’ই অধিক ব্যবহৃত হয়ে থাকে, কারন এখন প্রায় প্রতিটি ওয়েব সাইটের জন্যই থিম বা ডেমো পাওয়া যায় যাতে অল্প সময়ে ও অল্প খরচেই নিজের মতো সাইট করে নেয়া যায়। আর সম্পুর্ন নিজের চাহিদা মতো পাওয়া না গেলেও আংশিক মিল আছে এমন সাইট নিজের মতো করে নেয়া যায় আর এই প্রক্রিয়ায় হলো ওয়েব ডিজাইন।

ওয়েব ডিজাইন এর জন্য এসইও ফ্রেন্ডলি ও ভালো মানের ফ্রি/ পেইড থিম সম্পর্কে জানার জন্য এই আর্টিকেল টি পড়তে পারেন।

বেস্ট ৫ টি ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম রিভিউ (best free wordpress theme)

ওয়েব ডিজাইন কি? ওয়েব ডিজাইন কিভাবে করতে হয়?

ওয়েব ডিজাইন শিখতে কি কি লাগে?

ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য সব চাইতে জরুরি যেটির প্রয়োজন সেটি হলো শেখার আগ্রহ, প্রচুর ইচ্ছেশক্তি ও যথেষ্ট সময় ব্যয় করার মতো ধৈর্য। আপনি যদি চান এক মাসেই আপনি ওয়েব ডেভেলপার হয়ে যাবেন তো সেটি কোন ভাবেই সম্ভব না। হ্যা, এক মাসের মধ্যে আপনি একটা ধারণা পেয়ে যাবেন ও মোটামুটি ওয়েব সাইট ডিজাইন করতে পারবেন। যদি এটি এতো সহজ হতো তাহলে তো আর মানুষ বছরের পর বছর ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ে ওয়েব ডেভেলপার হতো না। দুই এক মাসের কোর্স করেই সবাই ইঞ্জিনিয়ার হয়ে যেতো।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার জন্য নির্দিষ্ট শিক্ষাগত যোগ্যতার ও প্রয়োজন নাই। আপনি ইংরেজি বোঝেন, লিখতে পারেন ও পড়তে পারেন এইটুকু হলেই আর প্রচুর ধৈর্য থাকলেই আপনি ওয়েব ডেভেলপার হতে পারবেন।

ওয়েব ডিজাইনের জন্য কম্পিউটার (পিসি)

আপনি যদি শুধুই ওয়েব ডিজাইন করার জন্য কম্পিউটার নিতে চান তাহলে আপনি লো কনফিগার এর ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কিনতে পারেন। তবে আমি বলব যদি আপনার বাজেট কম হয়ে থাকে তাহলে আপনি ডেস্কটপ কিনতে পারেন আর বাজেট বেশি থাকলে আপনার ইচ্ছে মতো ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ যা ইচ্ছে কিনতে পারেন। কেননা ওয়েব ডিজাইনের সকল কাজ প্রায় ব্রাউজারেই হয়ে থাকে তাই বেশি কনফিগারের কম্পিউটার প্রয়োজন হয় না সেরকম।

আর যদি আপনি ওয়েব ডিজাইনের সাথে গ্রাফিক্স ডিজাইন বা অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট অথবা অন্য ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলো করতে চান তাহলে আপনার ভালো মানের কম্পিউটার কিনতে হবে। তবে ওয়েব ডিজাইনের জন্য মনিটর একটু বড় হলে ভাল হয়। শুধু ওয়েব ডিজাইনের জন্য নিতে চাইলে এই বিষয়গুলো দেখতে পারেন।

মনিটরঃ ওয়েব ডিজাইনের কাজের জন্য বড় মনিটর হলে কাজ করে সুবিধা পাবেন। মাল্টিস্ক্রিনে কাজ করেও মজা পাবেন। তাই মনিটর ২১ ইঞ্চির হলে ভালো হয়। বাজেট কম হলে চায়না মনিটর ও ব্যবহার করতে পারেন।

প্রসেসরঃ প্রসেসর আপনার মিনিমাম কোর আই ৩ হতে হবে। এর নিচের প্রসেসর নিলে যখন একসাথে বেশি ট্যাব খুলে কাজ করবেন তখন ট্যাব ক্রাশ করার সম্ভাবনা থাকে।

হার্ডডিস্কঃওয়েব ডিজাইনের জন্য বেশি স্টোরেজের প্রয়োজন হয় না। ২০০ জিবি স্টোরেজ হলেই আপনার জন্য যথেষ্ট। কিন্তু ভাল হয় যদি আপনি নরমাল হার্ডডিস্ক না কিনে এসএসডি হার্ডডিস্ক কিনেন। এতে করে কম্পিউটারের স্পীড বৃদ্ধি পায়।

মাদারবোর্ডঃ বাজেটের মধ্যে কিনতে পারেন গিগাবাইট মাদারবোর্ড। খুব ভাল মানের মাদারবোর্ড আর খুব ভাল টেকসই ও। এছাড়া বাজেট আরো কম হলে জেল এর মাদারবোর্ড কিনতে পারেন। আমি আমার বাসায় একটা জেল এর মাদারবোর্ড কিনে দিয়েছি, দুই বছর হলো এখনো কোন সমস্যা দেখি নাই।

ইউ পি এসঃ আপনার এলাকায় যদি বিদ্যুতের সেরকম সমস্যা থাকে তাহলে ইউপিএস কিনতে পারেন। নইলে দেখা যাবে, কষ্ট করে পুরো পাতা কোডিং করছেন কিন্তু বিদ্যুতের জন্য সব চলে গেল আপনার।

ওয়েব ডিজাইনের ভবিষ্যৎ কি?

আপনি যদি ক্যারিয়ার হিসেবে ওয়েব ডিজাইন নিতে চান তাহলে আমি বলব আপনি একদম সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আপনার পেছনে লোকে কি বলল সেটি দেখার প্রয়োজন নাই। আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন পরিপূর্ণ ভাবে শিখতে পারেন ৬ মাস ১ বছর ব্যয় করে, তবে এর পরে আপনি মাসে ওঅনায়াসেই ৫০০-১০০০ $ (ডলার) আয় করতে পারবেন। এমনকি ওয়েব ডিজাইনের উপর অভিজ্ঞ হবার পর আপনি গুগলের মতো মাল্টি নাশনাল কোম্পানি তেও চাকুরীর সুযোগ পেতে পারেন।

কিন্তু এক্ষেত্রে আপনার শুধু HTMl ও CSS অর্থাৎ কোডিং শিখলেই হচ্ছে না। কারন শুধু এই কোডিং দিয়ে আপনি কোনই কাজ পাবেন না। HTMl ও CSS শেখার পর আপনার জন্য জরুরি হলো ওয়ার্ডপ্রেস শপিফাই এইসব প্লাটফর্মের কাজ শিখে নেওয়া। যদিও এসব শেখার জন্য আপনার কোন কোডিং শিখতে হবে না, শুধু অল্প কিছুদিন প্রাকটিস করলেই হয়ে যাবে। নিউজ, ম্যাগাজিন বা ব্লগ সাইটের ৯০% ওয়েবসাইট’ই তৈরি হয় ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে আর ই-কমার্স সাইটের বেশিরভাগ শপিফাই ও ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরি হয়। এইসব ছাড়াও হোস্টিং, সি প্যানেল, ডোমেইন, পিএইচপি এইসব বিষয়েও আপনার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে কাজ পাবার জন্য। আরো ভালো হয় যদি আপনি সাইট ডিজাইনের পাশাপাশি তাদের এসইও এর কাজ গুলোও করে দিতে পারেন।

যেহেতু পুরো পৃথিবীই এখন আধুনিক হচ্ছে, তাই ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর চাহিদাও বৃদ্ধি পাচ্ছে দিন দিন। আপনি ওয়েব ডিজাইন শেখার পর চাইলে লোকাল মার্কেটেও কাজ করতে পারেন। এছাড়াও ফাইবার, আপওয়ার্ক, ফ্রিলান্সার এইসব সাইট তো রয়েছেই আপনার কাজ পাবার জন্য। আপনার শুধু প্রয়োজন ভালো অভিজ্ঞতা ও একটা সুন্দর পোর্টফলিও।

তাই আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন নিয়ে নিজের ক্যারিয়ার তৈরি করতে চান, তবে আমি বলব আপনি একদম সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। শুধু ওয়েব ডিজাইন দিয়েই আপনার ক্যারিয়ার উজ্জ্বল করা সম্ভব।

ওয়েব ডিজাইন বাংলা কোর্স

ওয়েব ডিজাইন কিভাবে করতে হয়?

ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট এর প্রাণ হলো HTML (Hyper Text Markup Language) আর এই এইচ টি এম এল কে ডিজাইন ও স্টাইলিশ লুক দেয়ার জন্য ব্যবহার করা হয় CSS (Cascading Style Sheets). তো আপনাকে ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য এই দুইটা প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ শিখতেই হবে।

আর এই দুইটা ল্যাংগুয়েজ শেখার ও প্রাকটিস করার জন্য বেস্ট প্লাটফর্ম হলো W3 School. আপনি এখান থেকে একদম ফ্রিতে পরিপূর্ণ এইচটিএম এল ও সিএসএস শিখতে এবং প্রাকটিস ও করতে পারবেন।

HTML, CSS & PHP যদি W3 school থেকে শিখতে চান তাহলে এই লিংক গুলো ব্যবহার করতে পারেন।

https://www.w3schools.com/html/

https://www.w3schools.com/css/

https://www.w3schools.com/php/

PHP সম্পর্কে আরো জানার জন্য এই সাইটগুলো অনুসরণ করতে পারেন।

https://www.php.net/

My SQL সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন এই ওয়েবসাইট থেকে।

https://www.mysql.com/

আপনার ওয়েবসাইট তৈরির জন্য সকল কাজ যেখান থেকে করতে হবে সেটি হলো সিপ্যানেল যা আপনি হোস্টিং এ পাবেন। তো যেহেতু এখান থেকেই সকল কাজ, তাই সবার আগে সি প্যানেল সম্পর্কে পুরোপুরি জেনে নিতে পারেন এখান থেকে।

https://www.cpanel.net/products/cpanelwhm/cpanel11/tutorials.html

এর পরেই যেহেতু এখন বেশিরভাগ ওয়েব সাইট’ই ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরি হয়, তাই ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে জানা বেশি জরুরি। ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে শেখার জন্য এই ওয়েবসাইট টি অনুসরণ করতে পারেন।

https://code.tutsplus.com/series/learn-wordpress-development–cms-1092

ই-কমার্স সাইটের জন্য বেশি ব্যবহার করা হয় Shopify, তাই Shopify শেখার জন্য এই ওয়েবসাইটটি দেখতে পারেন।

https://developers.shopify.com/

https://www.shopify.com/partners/blog/topics/shopify-tutorials

একটি সম্পুর্ন ওয়েবসাইট তৈরি করার পর সেই সাইট প্রচার করার জন্য প্রথম মাধ্যম হলো SEO. এস ই ও এর মাধ্যমেই আপনার ক্লায়েন্ট বা ক্রেতাগন আপনার পন্য/ সেবা খুজে পাবে। তাই আপনার উচিত হবে SEO উপর অভিজ্ঞতা রাখা যাতে করে আপনার তৈরি করা সাইট গুলো আপনি নিজেই এসইও করে দিতে পারেন আপনার ক্লায়েন্ট দের। SEO সম্পর্কে শেখার জন্য এই ওয়েবসাইট টি অনুসরণ করতে পারেন।

https://moz.com/learn/seo

এই সাইটগুলো অনুসরণ করলে আপনি ওয়ব ডিজাইনের সকল কাজিই প্রায় শিখে যাবেন এবং যদি আরো কোন প্রয়োজন হয় বা হেল্প লাগে সেক্ষেত্রে আপনি গুগল/ ইউটিউবের সাহায্য নিয়ে অতি সহজেই তার সমাধান করতে পারেন। আর উপরে দেয়া সবগুলো লিংক’ই ভেরিফাইড ও শতভাগ নিরাপদ ও নির্ভরযোগ্য। তাই নিশ্চিতে এই সোর্স গুলো ব্যবহার করে ওয়েব ডিজাইন শিখতে পারেন। আর এই সব গুলো সোর্স’ই নিয়মিত ভাবে আপডেট করা হয়।

ওয়েব ডিজাইন কি? ওয়েব ডিজাইন কিভাবে করব?

বাংলায় ওয়েব ডিজাইন কিভাবে শিখব?

আপনার যদি উপরের কোর্সগুলো ভাল না লাগে বা আপনি যদি ইংরেজি এতোটা ভালো না বোঝেন তাহলে আপনি চাইলে বাংলাতেও ওয়েব ডিজাইন শিখতে পারেন। আমি এখানে কিছু বাংলাদেশি ইউটিউবারের বাংলা ওয়েব ডিজাইন টিউটোরিয়াল এর লিংক দিলাম যদিও এগুলো আপনার নিজ দায়িত্বে ব্যবহার করতে হবে।

HTMl এবং HTML 5 শিখে নিতে পারেন মশিউর ভাই এর ইউটিউব চ্যানেলে থেকে।

CSS ও শিখে নিতে পারেন মশিউর ভাই এর ইউটিউব চ্যানেল থেকে।

PHP শিখতে পারেন এই ইউটিউব চ্যানেল থেকে।

এছাড়াও ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য এই ভিডিও গুলো দেখে নিতে পারেন।

বেসিক ওয়েব ডিজাইন কোর্স

পিএসডি থেকে এইচ টি এম এল

বাংলা ওয়েব ডিজাইন কোর্স ফ্রি!

আপনি যদি ইউটিউব ছাড়া সরাসরি কোন প্রতিষ্ঠানের থেকে বাংলায় ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান তাহলে খেয়াল করে দেখবেন সব গুলো কোর্স’ই পেইড। কারন ফ্রিতে কোন ব্যক্তি/ প্রতিষ্ঠান কেন আপনাকে কোর্স দিবে? কিন্তু আপনি চাইলে আমাদের সাইট থেকে এই পেইড কোর্সগুলো ফ্রিতে ডাউনলোড করে নিতে পারেন তাও সরাসরি গুগল ড্রাইভ থেকে।

ফ্রিতে কোর্সগুলো ডাউনলোড করার জন্য এই আর্টিকেল টি পড়ন।

বাংলায় ফ্রিল্যান্সিং বই ও কোর্স একদম ফ্রি ডাউনলোড করে নিন।

শেষকথাঃ

আপনি যদি পুরো আর্টিকেল টি ভালোভাবে পড়েন তাহলে আপনার ওয়েব ডিজাইন কি ও ওয়েব ডিজাইন কিভাবে করতে হয় এই বিষয়ে আর কোন কিছু জানার বাকি থাকবে না। এর পরেও কোথাও বুঝতে সমস্যা হলে অথবা কিছু জানার থাকলে সেটি অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আমি চেষ্টা করব সেই বিষয়ের সমাধান করার জন্য।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Check Also
Close
Back to top button